কাঁকড়া কারি

Spread the love

আলাপচারিতাঃ

কাঁকড়া অতি পরিচিত একটি নাম, যার নিজস্ব একটি স্বাদ রয়েছে । যদিও এই নামেই নাকি অ্যালার্জি, কিন্তু এর কিছু বেনিফিট ও আছে, স্বাস্থ্যের। এই দেখুন আপনারা ভাবছেন আমি বাজে বকছি, আরে না আমি একদম সত্যি বলছি। চলুন জেনেনি কয়েকটি মুল্যবান “Health Benefit”

  • প্রোটিনের আঁধার বলে কাঁকড়াকে বলা হই। এবং খুব সহজেই হজম করা যাই কারন এতে প্রচুর কানেক্টিভ টিস্যু থাকে।
  • প্রচুর ভিটামিন ও মিনারেল কাঁকড়াই থাকে।এ ছাড়াও কম পরিমানে ফ্যাট থাকে যা ওমেগা- ৩ অ্যাসিড দ্বারা অসম্পৃক্ত।
  • কাঁকড়া যেহেতু খোলস যুক্ত প্রাণী, তাই এতে সেলেনিয়াম খনিজের আধিক্য আছে যা ইমিউন সিস্টেম, থাইরয়েড ও জননে সাহায্য করে।
  • কাঁকড়াতে ভিটামিন b12 থাকে যা রেড ব্লাড সেল তৈরিতে সাহায্য করে, এছাড়া ত্বক, চোখ ও নার্ভাস সিস্টেমকে যত্নে রাখে।
  • সর্বোপরি কপার এবং ফসফরাস থাকে।

আচ্ছা অনেক জ্ঞান বিতরণ করলাম এবার চলুন রেসিপিটা শিখে নি টুক করে, কিছু মনে করবেন না আমিও আজ রান্নাটা শিখলাম তাও আমার মা এর থেকে, যাইহোক এবার আপনার ও দেখেনিন।

উপকরণঃ

  • কাঁকড়া (৪০০ গ্রাম)
  • আলু (১ টা ছোটো করে কাটা)
  • পেঁয়াজ, টম্যাটো, আদা, লঙ্কা বাটা (১ টি বড় পেঁয়াজ , ১/২ টম্যাটো, ১/২ ইঞ্চি আদা, ৪ টি কাঁচা পাকা লঙ্কা)
  • চিনি (১ চামচ)
  • হলুদ(১ চামচ)
  • সরষের তেল (১০-১২ গ্রাম) (৩-৪ বড় চামচ)
  • কাশ্মিরি লঙ্কা গুঁড়ো
  • জিরে গুঁড়ো
  • নুন (স্বাদ মতো)
সমস্ত উপকরণের ছবি তোলা হইনি, ভুল মার্জনীয়

প্রনালিঃ

১. প্রথমে কাঁকড়া গুলোকে খুব ভালো ভাবে কেটে ধুয়ে নিতে হবে।

২. নুন হলুদ দিতে হবে দিয়ে ঘণ্টা খানেক মাখিয়ে রাখতে হবে।

৩. ঘণ্টা খানেক মাখিয়ে রাখার পর কড়াইতে তেল গরম করতে দিতে হবে, তাতে কাঁকড়া গুলোকে ছেড়ে দিতে হবে, লাল লাল করে তুলে নিতে হবে।

৪. এরপর তেলে পাঁচফোড়ন, তেজপাতা, আর শুকনো লঙ্কা দিয়ে তাতে আলু গুলো দিয়ে দিতে হবে।

৫. তেলে নুন, হলুদ আর চিনি কড়াইতে দিয়ে দিতে হবে তাতে তেলের রঙ বদলাবে।

৬. একটু আলু কষানোর পর তাতে বাটা মশলাটা এবং কাঁচালঙ্কা যোগ করতে হবে।

৭. ৫ মিনিট মশলা কষানোর পর তাতে জিরে গুঁড়ো এবং কাশ্মিরি লঙ্কা গুঁড়ো যোগ করতে হবে।

৮. মিনিট তিনেক ভালভাবে রেঁধে নিয়ে এতে কাঁকড়া দিয়ে ঢাকনা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে।

৯. ঢাকনা দিয়ে ১০ মিনিট রেখে দিয়ে তাতে গরম জল দিয়ে ভালভাবে ফুটিয়ে নিতে হবে।এইসময় নুন চিনির পরিমান টা স্বাদ করে নিতে হবে।

১০. চাইলে গরম মশলা দিতে পারেন দিয়ে গরম গরম ভাতের সাথে পরিবেশন করুন দারুন লাগবে।

বি.দ্র. – কাঁকড়ায় যাদের অ্যালার্জি আমি তাদের বলব একটু বুঝে খেতে এবং এটি গরম গরম ই খাবেন তালে বেশি ভাল লাগবে।

রেফারেন্স: 

https://www.salcombefinest.com/blog/why-crab-is-good-for-you/

100% LikesVS
0% Dislikes

2 thoughts on “কাঁকড়া কারি”

Leave a Comment

error: Content is protected !!